অর্থনীতি

ডিসেম্বরের মধ্যেই সংশোধন হচ্ছে দেউলিয়া আইন

করপোরেট দেউলিয়াত্বের বিধান সংযোজন

dব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে বছরের পর বছর তা ফেরত না দেয়ার ঘটনা দেশে নতুন নয়। বড় অনেক করপোরেট প্রতিষ্ঠানও ঋণ নিয়ে পরিশোধ করছে না। ব্যাংক খাতে খেলাপি ঋণের ঊর্ধ্বগতি থামাতে এরই মধ্যে দেউলিয়াবিষয়ক আইন সংশোধনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এজন্য আইনটিতে সংযোজন হচ্ছে ‘করপোরেট দেউলিয়াত্ব’ অনুচ্ছেদ। চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে এ আইন সংশোধন হবে বলে অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ সূত্রে জানা গেছে। সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, আইনটিকে আরো শক্তিশালী করতে প্রতিবেশী ভারতসহ অন্যান্য দেশের আইনগুলো পর্যালোচনা করা হচ্ছে। আইনটি সংশোধন হলে ঋণ নিয়ে দেউলিয়া ঘোষিত ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান নিজ নামে বিভিন্ন সুবিধা ভোগ করতে পারবেন না। নতুন আইনে দেউলিয়া ঘোষিত ব্যক্তির পাসপোর্ট জব্দকরণ বা বাতিল করা হবে। আমন্ত্রণ পাবেন না রাষ্ট্রীয় কোনো অনুষ্ঠানে। কোম্পানির পরিচালক কিংবা ক্লাবের সদস্যপদ গ্রহণ, গাড়ি কেনায়ও অযোগ্য ঘোষণা করা হবে। এছাড়া একাধিক ব্যাংক হিসাব পরিচালনার ক্ষেত্রেও বিধি-নিষেধ আরোপ করা হবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ বলেন, আর্থিক খাতে সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে একটি শক্তিশালী দেউলিয়া আইন দরকার। আগের আইনটা কার্যকর না হওয়ায় যারা ক্ষতিগ্রস্ত তাদের অনেকদিন ঝুলে থাকতে হতো। যথাযথভাবে আইনটা সংশোধন করা হলে অনেক সমস্যার সমাধান হবে। তবে আইন করলেই হবে না, এর যে ধারাগুলো আছে, সেগুলো বাস্তবায়ন করতে হবে। এ আইনটা বাস্তবায়ন করা হলে যারা ইচ্ছাকৃতভাবে ঋণখেলাপি হয়, তাদের সিগন্যাল দেবে।

বিশ্বব্যাংকের ‘ইজ অব ডুয়িং বিজনেস’ বা ব্যবসার পরিবেশ সহজীকরণ সূচকে উন্নয়নের জন্যও এ আইন সংশোধন জরুরি। কারণ বিশ্বব্যাংকের ‘ইজ অব ডুয়িং বিজনেস’ বা ব্যবসার পরিবেশ সহজীকরণ যে ১১ সূচক ব্যবহার করে করা হয়, তার একটি হচ্ছে রিজলভিং ইনসলভেন্সি বা ব্যাংকরাপ্সি বা দেউলিয়া।

এদিকে আগামী ২০২১ সালে বিশ্বব্যাংকের ‘ইজ অব ডুয়িং বিজনেস’ বা ব্যবসার পরিবেশ সহজীকরণ যে প্রতিবেদন প্রকাশিত হবে, তাতে এর প্রতিফলন পেতে আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে সংশোধন শেষ করে পরবর্তী তিন মাস এ ব্যবহারিক প্রয়োগ করার পর রিপোর্টিং করার বিধান রয়েছে। তাই ২০২১ সালে প্রকাশিত ব্যবসার পরিবেশ সহজীকরণ সূচকে এ আইন সংশোধনের সুফল পেতে ডিসেম্বরের আগেই আইন সংশোধনের জন্য কাজ করছে সরকার। তবে ডিসেম্বরের মধ্যে এত জটিল আইন সংশোধন কতটুকু সম্ভব তা নিয়েও শঙ্কা রয়েই গেছে। জন্য ভালো হবে।

এমন আরো সংবাদ

Back to top button