লাইফস্টাইল

অ্যালোভেরা ব্যবহারের আগে যা জানা জরুরি

5895অ্যালোভেরার নানা ধরনের ব্যবহারের সঙ্গে আমরা পরিচিত। এর ঔষধি গুণ সম্পর্কেও সবাই জানে। কেউ ওজন কমানোর প্রচেষ্টা হিসেবে অ্যালোভেরা বেছে নেন, কেউ আবার ত্বক সুন্দর রাখার জন্য রূপচর্চার অংশ করে নেন এই উপাদানকে। এর রয়েছে অনেক গুণ। যেমন ভিটামিন এ, সি, ই, ফলিক অ্যাসিড, কোলিন, বি ওয়ান, বি টু, বি থ্রি এবং বি সিক্স পাওয়া যায় অ্যালোভেরায়। অ্যালোভেরায় আরও থাকে ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, জিঙ্ক, ক্রোমিয়াম, সেলেনিয়াম, সোডিয়াম, আয়রন, পটাশিয়াম, কপার ও ম্যাঙ্গানিজসহ প্রায় ২০ ধরনের খনিজ পদার্থ। এত উপকারিতা থাকার পরও অ্যালোভেরা সবার জন্য উপকারী না-ও হতে পারে। অনেক সময় আমরা এর সঠিক ব্যবহার না জেনেই ব্যবহার করি, যে কারণে তা ক্ষতির কারণ হতে পারে।

অ্যালোভেরা যেমন উপকারী, তেমন ক্ষতিকরও হতে পারে। এর রয়েছে অনেকগুলো বিষাক্ত প্রজাতিও। ভুল করে যদি সেগুলোর কোনো একটি ব্যবহার করেন বা খেয়ে ফেলেন তাহলে তা আপনার ত্বক এবং পেট উভয়েরই ক্ষতি করবে। তাই অ্যালোভেরা ব্যবহার বা খাওয়ার আগে সেটি আসলেই উপযুক্ত কি না সে বিষয়ে নিশ্চিত হয়ে নিন। নয়তো অজান্তেই নিজের ক্ষতি ডেকে আনতে পারেন।

অ্যালোভেরা খাওয়ার সময় অনেকেই এর পরিমাণ সম্পর্কে জানেন না। কেউ কেউ অ্যালোভেরার শাঁস দিয়ে শরবত তৈরি করে খান। রাস্তার পাশের দোকানগুলোতেও এ ধরনের শরবত বিক্রি হতে দেখা যায়। কিন্তু একবারে অনেকখানি অ্যালোভেরা পেটে গেলে তা ক্ষতির কারণ হতে পারে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, একবারে এক গ্রামের বেশি অ্যালোভেরা খেলে তা কিডনির সমস্যা তৈরি করতে পারে। এতে থাকা ল্যাটেক্স ডায়রিয়া বা পেটের সমস্যার কারণ হতে পারে।

অনেকেই আছেন যারা ত্বকের যত্নে অ্যালোভেরা ব্যবহার করেন। এটি এই কাজে বেশ উপকারীও। তবে ত্বকের যত্নে কাজে লাগানোর আগে এর ব্যবহার সম্পর্কে ভালো করে জেনে নিতে হবে। অ্যালোভেরা কখনোই সরাসরি মুখে ব্যবহার করবেন না। এর হলুদ অংশ মুছে মুখে লাগাতে হবে। এতে থাকা হলুদ পদার্থ ক্ষতিকর। এটি খেলে পেটে ব্যথা হতে পারে। তাই এগুলো মাথায় রাখুন।

এমন আরো সংবাদ

Back to top button