অর্থনীতিহাইলাইটস

আজ থেকে প্রতি ডলার ৮৯ টাকা, রেপোর সুদহারও বাড়ল

আজ থেকে প্রতি ডলার ৮৯ টাকা, রেপোর সুদহারও বাড়ল দেশে ডলারের বিনিময় মূল্য আরেক দফা বাড়ল। আজ থেকে দেশের আন্তঃব্যাংক লেনদেনে প্রতি ডলারের বিনিময় মূল্য হবে ৮৯ টাকা। রোববার পর্যন্ত প্রতি ডলারের বিনিময় মূল্য ৮৭ টাকা ৯০ পয়সা নির্ধারিত ছিল।এদিকে বাজারে টাকার সরবরাহ কমাতে রেপোর সুদহার বাড়িয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। ৪ দশমিক ৭৫ শতাংশ থেকে ২৫ পয়সা বাড়িয়ে রেপোর সুদহার ৫ শতাংশ নির্ধারণ করা হয়েছে। দেশের মূল্যস্ফীতির লাগাম টানতে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে জানানো হয়েছে।

ডলারসহ দেশের বৈদেশিক মুদ্রার সংকট কাটাতে বৃহস্পতিবার বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর শীর্ষ নির্বাহীদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশ (এবিবি) ও বাংলাদেশ ফরেন এক্সচেঞ্জ ডিলারস অ্যাসোসিয়েশনের (বাফেদা) নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে বসে বাংলাদেশ ব্যাংক। ওই বৈঠকে প্রতি ডলারের বিনিময় মূল্য কত হবে, সেটি নির্ধারণের জন্য ব্যাংকগুলোকে প্রতিদিন প্রস্তাব দিতে বলা হয়। ওই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ব্যাংকগুলো রোববার প্রস্তাব দেয়, রফতানি বিল নগদায়নে ডলারের দাম হবে ৮৮ টাকা ৯৫ পয়সা। আর প্রবাসী আয় আনতে ডলারের সর্বোচ্চ দাম ধরা হবে ৮৯ টাকা ৭৫ পয়সা। অন্যদিকে আন্তঃব্যাংক লেনদেনে ডলার কেনাবেচা হবে ৮৯ টাকা ৮০ পয়সায় এবং আমদানিকারকদের কাছে বিক্রি করা হবে ৮৯ টাকা ৯৫ পয়সায়।

ব্যাংকগুলোর এ প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির গতকাল সন্ধ্যায় আন্তঃব্যাংক কেনাবেচার ক্ষেত্রে ডলারের দাম ৮৯ টাকা নির্ধারণ করে দেন। পাশাপাশি আমদানিকারকদের কাছে বিক্রির ক্ষেত্রে প্রতি ডলারের দাম ৮৯ টাকা ১৫ পয়সা নির্ধারণ করেন। আজ থেকে ডলারের নতুন এ বিনিময় মূল্য কার্যকর হবে বলে কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে জানানো হয়েছে। একই সঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে নতুন দামে ব্যাংকগুলোর কাছে ডলার বিক্রি করা হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সিরাজুল ইসলাম বণিক বার্তাকে বলেন, সার্বিক পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে ডলারের নতুন রেট নির্ধারণ করা হয়েছে। সোমবার থেকে এটি কার্যকর হবে। একই সঙ্গে বাজারের চাহিদা অনুযায়ী বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে ডলার বিক্রি করা হবে। এছাড়া মনিটারি পলিসি কমিটির (এমপিসি) সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী রেপোর সুদহার ৫ শতাংশ পুনর্নির্ধারণ করা হয়েছে। সোমবার থেকে রেপোর নতুন সুদহারও কার্যকর হবে।

প্রসঙ্গত, চলতি অর্থবছরের প্রথম নয় মাসে (জুলাই ’২১-মার্চ ’২২) ৬ হাজার ১৫২ কোটি ডলারের পণ্য আমদানি করেছে বাংলাদেশ, যা আগের অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় ৪৩ দশমিক ৮৬ শতাংশ বেশি। রেকর্ড আমদানির এলসি দায় পরিশোধ করতে হিমশিম খাচ্ছে দেশের বেশির ভাগ ব্যাংক। এতে ডলারসহ বৈদেশিক মুদ্রাবাজারে বড় ধরনের অস্থিরতা তৈরি হয়েছে। ফলে দেশের বাজারে প্রতিটি শক্তিশালী বৈদেশিক মুদ্রারই দাম বেড়েছে।

এমন আরো সংবাদ

Back to top button