ভ্রমণহাইলাইটস

ভারতে পর্যটক ভিসার আবেদন শুরু

৫৪৬২০৩.বিদেশি পর্যটকদের জন্য ভিসা সেবা চালু করছে ভারত। করোনার কারণে দেড় বছর বন্ধ থাকার পর মঙ্গলবার (১২ সেপ্টেম্বর) থেকে ভারতীয় হাই কমিশন বাংলাদেশে পর্যটক ভিসা পরিষেবা শুরু করছে। ভারতীয় হাই কমিশন টুইট করে জানিয়েছে, কারও কাছে আগে নেওয়া পর্যটক ভিসা থাকলে তা কার্যকর হবে না, সবাইকে নতুন করে ভিসা নিতে হবে। আগামী ১৫ নভেম্বরের পর নির্ধারিত এয়ার বাবল ফ্লাইটে পর্যটক ভিসায় বাংলাদেশ থেকে ভারতে যাওয়া যাবে। কেউ চার্টার্ড ফ্লাইট নিয়ে পর্যটন ভিসায় ভারতে যেতে চাইলে ১৫ অক্টোবরের পরই সে সুযোগ মিলবে। আপাতত পর্যটক ভিসায় কেবল আকাশ বা নৌপথে বাংলাদেশ থেকে ভারতে যাওয়া যাবে।

দেড় বছর ধরে বন্ধ থাকা ট্যুরিস্ট ভিসা চালুর বিষয়ে দেশটির কল্যাণবিষয়ক মন্ত্রণালয় বলেছে, ভারতের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, বেসামরিক বিমান চলাচল মন্ত্রণালয়, পর্যটন মন্ত্রণালয় এবং রাজ্য সরকারের মতো অংশীদারদের সঙ্গে আলোচনা করে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

ভারত সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রথম ৫ লাখ ট্যুরিস্ট ভিসা একদম বিনামূল্যে দেওয়া হবে। এদিকে, গতকাল সোমবার (১১ অক্টোবর) ঢাকাস্থ ভারতীয় হাইকমিশন এক বার্তায় জানিয়েছে, বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে ফ্লাইটের সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে। আগামী ১৫ অক্টোবর থেকে উভয় দেশের মধ্যে সপ্তাহে ২১টি ফ্লাইট চলাচল করবে।

ভারত এবং বাংলাদেশ যৌথভাবে এয়ার বাবল ব্যবস্থার অধীনে ফ্লাইটের সংখ্যা প্রতি সপ্তাহে উভয় দেশেই ৭টি থেকে ২১টিতে উন্নীত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ সিদ্ধান্ত ১৫ অক্টোবর থেকে থেকে কার্যকর হবে। এর ফলে চিকিৎসা ও ব্যবসায়িক উদ্দেশে ভ্রমণকারীরা উপকৃত হবেন।

দীর্ঘ দিন স্থগিত থাকার পর এয়ার বাবল চুক্তির আওতায় বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে ফ্লাইট চলাচল গত ৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হয়। দেশে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পেলে গত বছরের ১৪ এপ্রিল থেকে আন্তর্জাতিক ফ্লাইটে বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়। সে সময় ভারতসহ বেশকিছু দেশের সঙ্গে বাংলাদেশের ফ্লাইট চলাচল বন্ধ করা হয়। তখন চিকিৎসা, শিক্ষা, জরুরি প্রয়োজনে যারা ভারত গিয়েছিলেন তাদের স্থলপথে ফিরে আসতে হয়।   বাংলাদেশের বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স, নভোএয়ার ও ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স ভারতে ফ্লাইট পরিচালনা করে। অন্যদিকে বাংলাদেশে ফ্লাইট পরিচালনা করে ভারতের এয়ারইন্ডিয়া, ইন্ডিগো, স্পাইসজেট, ভিস্তারা ও গোএয়ার।

ভালো সংবাদের সর্বশেষ খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি অনুসরণ করুন

এমন আরো সংবাদ

Back to top button