গণমাধ্যমফেসবুক স্ট্যাটাস থেকে

একজন প্রবাসীবান্ধব সাংবাদিক কেরামত উল্লাহ বিপ্লব

Mahmudul Hassan(ব্লগার মাহমুদুল হাসান কায়রো)
ছবিটিতে ক্যামেরার পিছনে আমি এবং সামনে বিপ্লব ভাই। ২০১১ সালে মিশরের আলেজান্ড্রিয়ার ভূমধ্য সাগরের পারে তোলা ছবিটি। লিবিয়ায় যুদ্ধচলাকালীন সময়ের বিশেষ এক এসাইনমেন্টর ছবি এটি। ছবিটি তুলেছিলেন মুন্নি সাহা।- লেখক

সংবাদ মাধ্যমের এই অন্ধকার যুগেও কিছু সাংবাদিক আছেন যারা যতটুকু সম্ভব নিষ্ঠার সাথে কাজ করে যাচ্ছেন। তাদের মধ্যে আমার অতি পরিচিত খুব কাছের বড় ভাই কেরামত উল্লাহ বিপ্লব ভাই। সাংবাদিকতার দীর্ঘ ক্যারিয়ারে এখন পর্যন্ত তার বিরুদ্ধে কেউ কোন অভিযোগ দাড় করাতে পাড়বে না। বর্তমানে তিনি এটিএন বাংলার কারেন্ট এফেয়ার্স এডিটর হিসেবে কর্মরত আছেন। বিপ্লব ভাইয়ের সবচেয়ে পজেটিভ দিক হল তিনি প্রবাসীবান্ধব সাংবাদিক। প্রবাসীদের নিয়ে সবচেয়ে বেশি কাজ করেন, যার ফলে প্রবাসীদের মাঝে তার জনপ্রিয়তা অন্য সব সাংবাদিকদের চেয়ে বেশি।

বিপ্লব ভাইয়ের সাথে প্রায় ১০ বছর জানাশোনা ও কাজ করার অভিজ্ঞতায় দেখেছি প্রবাসীদের যে কোন সমস্যায় তিনি সরাসরি প্রবাসীদের সাথে কথা বলে তথ্য সংগ্রহ করে সংবাদ প্রকাশ করেন।  কেবলমাত্র বিদেশী পত্রিকার নিউজের উপর নির্ভর করেন না। যার ফলে প্রবাসীরা তাদের বিপদ আপদে সরাসরি তার ইনবক্সে ম্যাসেজ করতে পারেন। তিনি খুবই আন্তরিকতার সাথে সেই ম্যাসেজ পড়েন, এবং সর্বোচ্চ গুরুত্বের সাথে সেটা নিয়ে কাজ করার চেষ্টা করেন।

সম্প্রতি লকডাউনের কারণে হঠাৎ বিমান চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হলে বেশ কিছু সৌদীআরব প্রবাসী দেশে আটকা পরে। তাদের ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার উপক্রম হলে তারা খুব বিপদে পরে যায়। চাকরি হারানোর ভয়ে দিশেহারা হয়ে পরে। তাদের অনেকে বিভিন্ন দিকে দৌড়াদৌড়ি করে, এবং কিছু মানুষ বিপ্লব ভাইয়ের সাথে যোগাযোগ করে। বিপ্লব ভাই তাদের অনেকের সাথে কথা বলে সমাধান খুঁজতে থাকেন। তাদের সাথে আলাপ করে যা বুঝা যায় তা হল তাদের ফ্লাইট করানো ছাড়া বিকল্প কোন পথ নেই। তাই তিনি নিজে দায়িত্ব নিয়ে যোগাযোগ করেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. আহমেদ মুনিরুছ সালেহীনের সাথে। তিনি তাকে প্রবাসীদের অবস্থা বিবেচনা করে বিশেষ ব্যবস্থায় তাদের সৌদি পাঠানোর বন্দোবস্ত করতে অনুরোধ করেন। সচিবালয় বন্ধ থাকায় সচিব সাহেব প্রথমে অপারগতার কথা বললেও বিপ্লব ভাইয়ের বিশেষ অনুরোধে তিনি অফিসে আসেন, এবং সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের বিশেষ ডিউটিতে অফিসে আসতে বলেন। এরপর সবাই মিলে উক্ত প্রবাসীদের সকল সমস্যার সমাধান করে বিশেষ ফ্লাইটে তাদের সৌদি ভ্রমণ নিশ্চিত করে তারপর বাসায় ফিরেন। আগামী ৩ তারিখ তারা বিশেষ ফ্লাইটে সৌদি গমন করবেন। ধন্যবাদ বিপ্লব ভাই আপনাকে, দায়িত্ব নিয়ে এত সুন্দর একটি কাজ সম্পন্ন করার জন্যে। ধন্যবাদ সংশ্লিষ্ট সকল কর্মকর্তাদের।

ভালো সংবাদের সর্বশেষ খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি অনুসরণ করুন

এমন আরো সংবাদ

Back to top button